সড়কে ঝরল মেধাবী শিক্ষার্থী সানির প্রাণ

সড়কে ঝরল মেধাবী শিক্ষার্থী সানির প্রাণ, ফেসবুকে বিভিন্ন মহলের আবেগঘন স্ট্যাটাস

ঈদের ছুটিতে মায়ের সাথে ঈদ করতে ঢাকা থেকে আসার পথে ওমর ফারুক সানি (২৮) নামে এক মেধাবী শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। সে পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুর ইউনিয়নের কাঁচিপাড়া গ্রামের মৃত নুরাল মোল্লার ছেলে।

দুর্ঘটনাটি ঘটে সোমবার (১৯ জুলাই) সুজানগর উপজেলার সাগরকান্দি ইউনিয়নের খলিলপুর নামক স্থানে রাত ৮টার দিকে। নিহতের ফুফাতো ভাই সাংবাদিক এস এম আলাউদ্দিন জানান, মায়ের সাথে দেশের বাড়িতে ঈদ করার জন্য এদিন ঢাকা থেকে আরিচা-কাজিরহাট ফেরি পার হয়ে সিএনজিযোগে নিজ বাড়ী আসার পথে খলিলপুর নামক স্থানে একটি মোটরসাইকেলের সাথে সংঘর্ষে ওমর ফারুক সানি গুরুতর আহত হন।

পরে আশংকাজনক অবস্থায় তাকে সুজানগর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওমর ফারুক সানির মৃত্যুর খবর মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে আত্মীয়স্বজন, এলাকাবাসী, বন্ধ, সহপাঠী শোভাকাঙ্খী সহ সর্বস্তরের মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। শেষবারের মতো একবার দেখতে মরহুমের বাড়ীতে ছুটে যান সব শ্রেণীপেশার মানুষ। এ সময় শেষ

বিদায় জানাতে আসা মানুষের চোখের জলে সেখানে এক হৃদয় বিদারক বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। পরে মঙ্গলবার সকালে তার জানাজা নামাজ শেষে চরতারাপুর ইউনিয়নের খাপড়াডাঙ্গি কবরস্থানে সমাহিত করা হয়। জানাজা নামাজে বিভিন্ন পর্যায়ের অসংখ্য মানুষ শরীক হন। এদিকে ওমর ফারুক সানির মৃত্যুতে ফেসবুকে শোক ও তার রুহের মাগফেরাত কামনা করে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছে শিক্ষক, বন্ধু, সহপাঠী সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের শিক্ষক নুরুল আলম তার ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন, আজ সকালে ফেসবুকে চোখ রাখতেই, চোখটা ঝাপসা হয়ে গেল। একটি সড়ক দুর্ঘটনা।

একটা সাধারণ ছাত্র কিভাবে এত অসাধারণ হয়ে উঠেছিল সেটা আল্লাহপাকই ভালো জানেন। সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ থেকে সর্বশেষ বিবিএ (অনার্স) পাশ করা ছাত্র ওমর ফারুক সানি সড়ক দুর্ঘটনায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। এই বেদনাদায়ক ঘটনা যখন কলেজের রসায়ন বিভাগের একজন শিক্ষকের ফেসবুকে পাবনা জেলা, উপজেলা ও এসএম হলের ছাত্রলীগের শীর্ষ স্থানীয় নেতারা সহ বিভিন্ন মহল থেকে ফেসবুকে-এ নিজেদের ওয়ালে ওমর সানির যে অমায়িক ব্যাক্তিত্বের বর্ণনা দিয়েছেন। তাতে সহজেই বুঝা যায় তার চলাফেরা অতি সাধারণ হলেও সে ছিল অসাধারণ ব্যক্তিত্বের অধিকারী। হে আল্লাহ ওমর ফারুক সানিকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করো।

আর তার পরিবারের এই শোক সইবার ক্ষমতা দান করো। সুজানগর পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ফেরদৌস আলম ফিরোজ তার ফেসবুকে লিখেছেন, মাটির নিচে ভালো থাকতে হলে, মাটির উপরে ভালো কাজ করতে হয়। আমার বিশ্বাস সানি দুনিয়াতে এই কাজটি করেছে, এস এম হলে এক সাথে অনেক দিন কেটেছে এত ভালো মানুষ আল্লাহ পাক সানিকে বেহেস্ত নসিব করুন। সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের এস এম হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আশিকুল ইসলাম আশিক লিখেছেন, কিছু কিছু মৃত্যু মেনে নেয়া যায়না। ঝরে গেল তাবলীগের (ওমর ফারুক সানি) একটা তাজা প্রাণ। সানি তোর ব্যবহারে আমরা এসএম হলবাসী সবাই মুগ্ধ ছিলাম।

প্রতিদিন আযানের ধ্বনি কানে আসতেই সবরুমে ডাকাডাকি করতি ভাই চলেন নামাজে যাই। তোর সাথে বোঝাপড়াটা ভালো ছিল আমার, তাই তোর ডাকে সর্বশেষ এস্তেমাতেও গিয়েছিলাম। এসএম হলে যে কয়েকজন তাবলীগের ছেলে ছিল, সবাইকে তুই ডেকে নিয়ে আমার মাধ্যমে উঠাইছিলি। তোর খুব ইচ্ছা ছিল যখন এসএম হল থেকে বিদায় নিয়ে চলে যাবি,তখন তোর বেডে যেনো একটা তাবলীগের নামাজি ছেলেকে উঠাই। সেই ইচ্ছেটা তুই থাকতেই পূরণ করে দিয়েছিলাম।

সর্বশেষ কথা হয়েছিল তোর অনার্স পরীক্ষার ফলাফলের পরই। তোর মৃত্যুর খবর শুনে চোখে পানি ধরে রাখতে পারিনাই। হে আল্লাহ ওমর ফারুক সানিকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন (আমিন)। সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ তুষার লিখেছেন, তোমার মতো নম্র, ভদ্র, সৎ ধার্মিক ছেলে কমই আছে এই যুগে। এতো তাড়াতাড়ি চলে যাবি ভাবানি ভাই। আল্লাহ হয়তো এই ফেৎনার দুনিয়াতে তোমাকে রাখবেনা তাই নিয়ে গেল তার কাছে। জানি মেনে নিতে সবার কষ্ট হবে মা, ভাই, বোন,বন্ধু সবার। দ্বীনের জন্য তোমার মতো ছেলে খুব দরকার ছিলো। আল্লাহর ফায়সালা মানতে হবে। ভাই জানিনা তোমাকে কখনো কষ্ট দিয়েছি কিনা। কিন্তু তুই থাকবি আমাদের ভালবাসার অন্তরে। মহান আল্লাহ নিশ্চই তোমাকে সম্মানিত করবে জান্নাতুল ফেরদৌসের মেহমান হিসেবে (আমিন)।

এস এম হলের সানির রুমমেট ও সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি হুমায়ন কবির ফরহাদ লিখেছেন, আমার খবুই পছন্দের মানুষের মধ্যে একজন তুই ছিলে ভাই। তোর নামাজ-কালাম, তোর কুরআন তেলোয়াত, তোর ইসলামের পথে মানুষের আহ্বান, তোর ভদ্রতা সবকিছুই আমাকে মুগ্ধ করতো। মেনে নিতে খুবই কষ্ট হচ্ছে।

শুধু রুমমেট জন্য বলছি না এস এম হলের প্রতিটি ছেলের কাছেই তুই খুব প্রিয় ছিলি। সত্যিই তোর এই চলে যাওয়াটা অনেক কষ্ট দিল ভাই।পরপারে ভালো থাকিস। আল্লাহ সানির পরিবারের সবাইকে এই শোক সইবার তৌফিক দাও (আমিন)। এস এম হলের ২১৮ নম্বর রুমের শরিফ শাওন লিখেছেন ওপারে ভাল থাকবেন এস এম হলের ২১৫ নম্বর রুমের সবার প্রিয় ওমর ফারুক সানি ভাই। দোয়া করি আল্লাহ আপনাকে জান্নাতবাসি করুন (আমিন)।

এছাড়া মেধাবী এই শিক্ষার্থীর আত্মার শান্তি কামনা করেছেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও শিক্ষকবৃন্দ, সুজানগরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আব্দুস সামাদ মাস্টার, সুজানগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী এম এ আলিম রিপন সহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গ ।

error: অতি চালাকের গলায় দড়ি !!