সুজানগরে জমি ও ঘর পেল আরও ১২ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার

সুজানগরে জমি ও ঘর পেল আরও ১২ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার

মুজিববর্ষ উপলক্ষে দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারে সুজানগরে মাথা গোঁজার ঠাঁই পেলেন আরও ১২টি অসহায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। রবিবার (২০ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৪৯২টি উপজেলার সাথে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মুজিববর্ষের এ উপহার প্রদানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরেই সুজানগর উপজেলার অসহায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ১২ টি পরিবারের মাঝে গৃহ ও জমির দলিলাদি হস্তান্তর করেন প্রধান অতিথি পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির। উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রওশন আলীর সভাপতিত্বে গৃহ ও জমির দলিলাদি হস্তান্তর প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুজানগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহীন ও পৌর মেয়র রেজাউল করিম রেজা ।

সুজানগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রকৌশলী আবুল হাশেম,উপজেলা কৃষি অফিসার রাফিউল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নাজমুল হুদা, সাতবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম সামছুল আলম, দুলাই ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান, নাজিরগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মশিউর রহমান খান, ভাঁয়না ইউপি চেয়ারম্যান আমিন উদ্দিন, সুজানগর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান আলী সহ স্থানীয় বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পাবনা-২ আসনের এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির বলেন বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না। সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর করে দিতে সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। এদিকে মাথা গোঁজার ঠিকানা পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে হয়ে পড়েন সুজানগরের ১২টি গৃহহীন পরিবারের সদস্যরা। তারা এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু ও সুস্থতা কামনা করেন।

উল্লেখ্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ও ‘দেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন নির্দেশনায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে সুজানগর উপজেলার সাতবাড়ীয়া ্ইউনিয়নের কাদোয়া ও কুড়িপাড়া এবং ভাঁয়না ইউনিয়নের ভাঁয়না গ্রামে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ১২ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য সেমিপাকা বসতবাড়ি নির্মাণ করা হয়।

যাদের জমি ও বাড়ি কোনো কিছুই নেই তাদের সরকারি ব্যবস্থাপনায় দুই শতাংশ সরকারের এক নম্বর খাস খতিয়ানভূক্ত সম্পত্তিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রেরিত ডিজাইন অনুসরণ করে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে নান্দনিক এসব সেমিপাকা বসতবাড়ি নির্মাণ করে উপজেলা প্রশাসন।

এ সব বসতবাড়িতে থাকছে দুইটি শয়নকক্ষ,একটি টয়লেট,রান্নাঘর ও একটি বারান্দা। ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ছিন্নমূল ও ভূমিহীন পরিবারের তথ্য স্থানীয় ভূমি অফিস থেকে যাচাই করে নিশ্চিত হওয়ার পরেই সুবিধাভোগীদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আর এই প্রকল্পের অধীনে ভূমিহীন-গৃহহীন বিধবা, অসহায়, বয়স্ক এবং প্রতিবন্ধীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিনামূল্যে এই ঘরগুলো দেওয়া হয়।

error: অতি চালাকের গলায় দড়ি !!