সুজানগরে ক্রেতাশূন্য সোনার বাজার!

সুজানগরে ক্রেতাশূন্য সোনার বাজার!

আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে সাথে দেশী বাজারে হু হু করে বাড়ছে সোনার দাম । এর প্রভাব পড়েছে সুজানগরের সোনার দোকানগুলোতেও। বর্তমানে সোনার বাজারে ক্রেতা নেই বললেই চলে। মন্টু কর্মকার নামক এক ব্যক্তি জানান ২০২০ সালের জানুয়ারী মাস থেকে এ পর্যন্ত সোনার দাম প্রায় ১৫ বার উঠানামা করেছে। স্বাধীনতার পর সোনার ভরি ছিল ১৭০ টাকা তা এখন মানুষের কাছে রুপকথার গল্প বলে মনে হলে এটাই সত্য।

সুজানগর পৌর বাজারের অপরুপা জুয়েলার্সের মালিক লিটন কুমার রায় বলেন এমনিতেই করোনা সংক্রমণের কারণে গত ৪ মাস প্রায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে হয়েছে। এখন আবার সোনার দাম বাড়ায় তেমন কোন ক্রেতাই আসছেনা। আবার যারা ছেলে বা মেয়ের বিয়ের জন্য বিপদে পড়ে কিনতে আসছেন তারা দাম বৃদ্ধির কারণে ২ ভরির জায়গায় ১ ভরি সোনার অলংকার কিনছেন।

অপর কর্মকার গোপাল চন্দ্র সরকার বলেন বর্তমানে ক্রেতা না থাকায় সোনা ব্যবসায়ী ও কারিগররা নিজ নিজ দোকানে অলস সময় কাটাচ্ছেন। আর বর্তমানে সোনা ক্রয় করার চেয়ে বিক্রয়য়ের জন্যই মানুষ বেশি আসছে।

সোনার পাইকারী ব্যবসায়ী কর্মকার জুয়েলার্সের মালিক সজীব কর্মকার জানান সোনার বাজার উঠানামা করে আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে। তিনি বলেন বিগত ২০০৩ সালে যে সোনা ভরি প্রতি ৭ থেকে সাড়ে ৭ হাজার টাকা ছিল, তা বর্তমানে দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৭ হাজার টাকায়। এখন কোন ব্যবসায়ীই নতুন করে সোনা কিনছেন না, যে সকল ব্যবসায়ীর কাছে পূর্বে সোনা ক্রয় করা আছে সেগুলোই এখনও অবিক্রিত রয়ে গেছে।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সুজানগর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ঝন্টু কুমার কর্মকার জানান অন্যান্য বছরের ঈদ বাজারে সোনার ক্রেতা কম-বেশি থাকলেও এবারে ছিলনা বললেই চলে। করোনার পাশাপাশি অস্বাভিক সোনার দাম বৃদ্ধির কারণে বাজারে ক্রেতা নেই। সোনার চাহিদা থাকলেও ক্রয় ক্ষমতা না থাকায় ক্রেতারা ঝুঁকে পড়েছেন ইমিটেশনের অলংকারের দিকে। বর্তমানে পারদের মতো সোনার দাম উঠানামা করছে। এ কারণে ক্রেতা না থাকায় সুজানগর পৌর বাজার সহ এই উপজেলার শতাধিক সোনার দোকানের বেশিরভাগ কারিগর বর্তমানে বেকার। অনেকে পেশা বদল করে অন্য পেশায় ঝুঁকে পড়েছে।

এ অবস্থা চলতে থাকলে স্থানীয় অনেক সোনার দোকান বন্ধ হওয়ার আশংকা প্রকাশ করেন তিনি। তাই এই পেশার সাথে জড়িতদের সহজ শর্তে আর্থিক প্রণোদনা দেবার জন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

error: অতি চালাকের গলায় দড়ি !!