সুজানগরে করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় পুলিশের মাস্ক বিতরণ

সুজানগরে করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় পুলিশের মাস্ক বিতরণ

করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের বছর পেরিয়ে সম্প্রতি আবারও বাড়ছে আক্রান্তের হার। এ অবস্থায় মানুষের মাস্ক পরা নিশ্চিত ও কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে আবারো মাঠে নেমেছে সুজানগর থানা পুলিশ।

সুজানগরে করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় পুলিশের মাস্ক বিতরণ | সুজানগর.কম

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ‘মাস্ক পরার অভ্যাস,করোনামুক্ত মুক্ত বাংলাদেশ’ স্লোগানকে সামনে রেখে দেশব্যাপী বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যোগের অংশ হিসেবে সুজানগর থানা পুলিশের আয়োজনে জনসচেতনতামূলক বিশেষ এই উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি সুজানগরে শুরু হয়েছে ।

সুজানগরে করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় পুলিশের মাস্ক বিতরণ | সুজানগর.কম

রোববার (২১ মার্চ) বেলা ১১টায় কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় সুজানগর পৌর বাজারে মাস্ক না পরে চলাচলকারী সব শ্রেণীর মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সুজানগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহীন, সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুদ্দোজা এবং ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম। এ সময় সুজানগর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান আলী, সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের উপজেলা প্রতিনিধি এম এ আলিম রিপন সহ সুজানগর থানায় কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সুজানগরে করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় পুলিশের মাস্ক বিতরণ | সুজানগর.কম

সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)বদরুদ্দোজা জানান,বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ স্যার এর নির্দেশনা অনুযায়ী বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ শুরু করা হয়েছে। আপাতত বাধ্য নয়, স্বাস্থ্যবিধি মানতে থানা পুলিশের পক্ষ থেকে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করছি।

সুজানগরে করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় পুলিশের মাস্ক বিতরণ | সুজানগর.কম

আর জনসাধারণের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ,করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণে উদ্বুদ্ধকরণ, সচেতনতামূলক মাইকিং, লিফলেট বিতরণ, সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণে ভূমিকা রাখা সহ বিভিন্ন কর্মসূচি করোনা ঝুঁকি মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

সুজানগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহীন পুলিশের এ ধরণের উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করার পাশাপাশি জনসাধারণের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,ঘর থেকে বেরোলেই মাস্ক পরবেন। আমরা সংক্রমণমুক্ত হলেও সংক্রমণের হুমকি থেকে যায়। যতদিন পর্যন্ত সারা বিশ্ব করোনা ঝুঁকি মুক্ত না হয়, ততদিন আমাদের স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে।

নিজের, নিজের সন্তানের, পরিবারের জন্য এবং বয়স্ক নাগরিকদের চিন্তা করে সবাইকে মাস্ক পরতে হবে বলেও জানান তিনি। এদিন রাস্তার পথচারী, গাড়ীচালক, ভ্যানচালক, মোটরসাইকেল আরোহী সহ বিভিন্ন শ্রেণীর এক হাজার মানুষকে মাস্ক পরিয়ে দেওয়া ও বিতরণ করা হয় বলে জানান ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম।

error: অতি চালাকের গলায় দড়ি !!