সুজানগরে অবৈধ অটোভ্যানের দখলে পৌর শহর, তীব্র যানজটে জনদুর্ভোগ চরমে

সুজানগরে অবৈধ অটোভ্যানের দখলে পৌর শহর, তীব্র যানজটে জনদুর্ভোগ চরমে

তীব্র যানজটে নাকাল হয়ে পড়েছে সুজানগর পৌর শহর। যত্রতত্রভাবে অনিবন্ধিত ব্যাটারী চালিত অটো ভ্যান, নছিমন, অটোবাইক ও করিমন সুজানগর পৌর শহরের প্রধান সড়ক দখল করে নেওয়ায় ফলে রাস্তা সংকুচিত হয়ে পড়ায় যানজট যেন বর্তমানে শহরের নিত্যদিনের চিত্র।

পৌর শহরের উপজেলা পরিষদ গেট চত্বর থেকে বাজারের প্রধান সড়ক হয়ে হাসপাতাল গেট পর্যন্ত এই যানজটকে প্রকট করে তুলেছে অনিবন্ধিত শত শত ব্যাটারী চালিত অটো ভ্যান, নছিমন, অটোবাইক ও করিমন এবং সড়ক দখল করে স্ট্যান্ড করে যাত্রী উঠানো নামানো। আর তীব্র যানজট সৃস্টি হওয়ার কারণে দিনের বেশিরভাগ সময় স্থবির হয়ে থাকে সুজানগর পৌর শহর। এ ধরণের চিত্র দেখে মনে হয় সুজানগর পৌর শহরের মানুষের তুলনায় যানবাহনের সংখ্যাই বেশি।

যানজটের অন্যতম আরেকটি কারণ হল রাস্তার পাশে ফুটপাত দখল করে ব্যবসায়ীদের দোকান স্থাপন। এছাড়া সপ্তাহের রবিবার ও বুধবার পৌর হাট হওয়ায় এই দুইদিন যানজট যেন আরো বৃহৎ আকার ধারণ করে। আর অসহনীয় এই যানজটের কবলে পড়ে প্রতিনিয়ত সাধারণ মানুষকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে, ঘটছে দুর্ঘটনাও। ফলে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন শহরের ব্যবসায়ী, অফিসগামী ও সাধারণ পথচারী মানুষকে। এমনকি গুরুত্বর রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স ও অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নির্বাপনে যাওয়া ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি সময়মত পৌঁছাতে না পারায় অপূরণীয় ক্ষতির শিকার হচ্ছে উপজেলাবাসী।

আবার যানজটে মরার উপর খাড়ার ঘা হিসেবে দেখা দিয়েছে এই বাজারের প্রধান সড়ক দিয়ে নিয়ম ভঙ্গ করে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ট্রাক, বাঁশের গাড়ী সহ বড় বড় যানবাহন ট্রলি চলাচল। সম্প্রতি সুজানগর পৌরসভা কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও থানা পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে যানজট নিরসন করতে সক্ষম হলেও কিছুদিন পরে আবারও পূর্বের অবস্থা ফিরে পায় পৌর শহর ।

রাশিদুল হক নামে সুজানগরের এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন,প্রতিদিন সকাল থেকে দীর্ঘ যানজট লেগেই থাকে। অফিস বা কাজে বের হলেও অনেক সময় নিয়ে বাসা থেকে বের হতে হয়। তাই সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে এই যানজট থেকে উত্তরণের উপায় বের করা জরুরী বলেও মনে করেন তিনি।

স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ মাষ্টার ও তোফাজ্জল হোসেন তোফা বাজারের পূর্বদিকে থানার সামনের বালুর মাঠে এবং বাজারের পশ্চিম দিকে জিরো পয়েন্ট মোড় চত্বর এলাকায় ভ্যান স্ট্যান্ড করে দিয়ে বাজারের মধ্যে থেকে যাত্রী উঠানো নামানোর জন্য সিরিয়ালের মাধ্যমে কয়েকটি ভ্যান বাজারে অবস্থানের সুযোগ করে দেওয়ার মাধ্যমেও যানজট কমানো সম্ভব বলে মনে করেন।

পৌর বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সেলিম হোসেন ও কুতুব উদ্দিন বলেন যানজট নিরসনে প্রয়োজনে বিভিন্ন প্রকার যানবাহন বাজারের উত্তর ও দক্ষিণপাশে অবস্থিত বাইপাস সড়ক দিয়ে চলাচল করতে দেওয়া উাচত। সে ক্ষেত্রে অতিদ্রুত স্থানীয় মোহাম্মাদিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে কুটিপাড়া মোড় পর্যন্ত বেহাল রাস্তাটি সংস্কার করা করা দরকার।

সুজানগর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান আলী বলেন মাত্রাতিরিক্ত অনিবন্ধিত অবৈধ অটো ভ্যান ও অটোবাইকের কারণে যানজট বাড়ছে। এগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে শহরের যানজট কিছুটা হলেও কমানো সম্ভব। এ বিষয়ে সুজানগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. রওশন আলী জানান শহরের যানবাহন নিয়ন্ত্রণে রাখতে শীঘ্রই অনিবন্ধিত যানবাহন ধরতে অভিযান চালানো হবে। এবং সেই সাথে উচ্ছেদ করা হবে ফুটপাতের অবৈধ স্থাপনাও।

এছাড়াও থানা অফিসার ইনচার্জ বদরুদ্দোজা, সুজানগর পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল ওহাব ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহীন সহ সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে পরামর্শক্রমে যানজট নিরসনে দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

error: অতি চালাকের গলায় দড়ি !!